খেলোয়াড়দের রুশ মেয়ে পটানোর কৌশল শেখাচ্ছে আর্জেন্টিনা!

Smiley face

নারীর মন নাকি বিধাতাও বুঝতে পারেন না। সেখানে ফুটবলাররা তো কিছুই না। ফুটবলের মাঠে যতই অপ্রতিরোধ্য হোক না কেন নারীর মনের সামনে দারুণ অসহায় তারা। সেই বিষয়টি মাথায় রেখে ফুটবলারদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে আর্জেন্টিনার ফুটবল ফেডারেশন। বিশ্বকাপকে সামনে রেখে দেশটির ফুটবল ফেডারেশন একটি ম্যানুয়াল প্রকাশ করেছে। যাতে করে বিশ্বকাপের সময় রাশিয়ান সুন্দরীদের সহজেই পটাতে পারেন আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফ ও সাংবাদিকরা। সেই ম্যানুয়ালের কয়েকটি অধ্যায় ছড়িয়ে পড়েছে অন লাইনে। সেই সাথে উঠেছে সমালোচনার ঝড়ও।

রাশান সুন্দরীদের পটানোর কৌশল শেখানোর ম্যানুয়ালটি প্রস্তুত করেছেন ড. এদুয়ার্দো পেনিসি। আর এতে সহায়তা করেছে আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশতি একটি অধ্যায়ের শিরোনাম : ‘রাশিয়ান সুন্দরীদের পটাতে আমাকে কি করতে হবে?’ সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘তাদের কাছে প্রথম দেখাটা গুরুত্বপূর্ণ। সুতরাং নিজের ভাবমূর্তি বজায় রাখুন।’

আরেক অধ্যায়ে বলা হয়েছে, ‘রাশিয়ান মেয়েরা নিজেদের লক্ষ্যবস্তু হিসেবে দেখতে পছন্দ করে না এবং বিরক্তিকর পুরুষ অপছন্দ করে। তাদের সামনে নেতিবাচক মানসিকতা পোষণ করবেন না। সেই একই পুরোনো প্রশ্ন করবেন না। নিজের স্বাভাবিকতা বজায় রাখুন। তারা উদ্যোমী পুরুষ পছন্দ করে। যদি আপনি সেরকম না হন, তবে আগে অন্য নারীর সাথে বিষয়টি অনুশীলন করুন। রুশ মেয়েরা সুন্দরী হয় বলে অনেক পুরুষই তাদের বিছানায় নিয়ে যেতে চায়।’

এছাড়া আরেক অধ্যায়ে রাশিয়ান মেয়েদের সাথে সেক্স নিয়ে কথা বলার বিষয়ে সতর্ক করে বলা হয়েছে, ‘সেক্স নিয়ে নির্বোধের মতো প্রশ্ন করবেন না। রাশিয়ানদের কাছে সেক্স খুবই ব্যক্তিগত বিষয় এবং এ নিয়ে তারা প্রকাশ্যে আলোচনা করে না।’

ম্যানুয়ালটিতে আরো জানানো হয়েছে, রাশিয়ায় যথেষ্ট সুন্দরী মেয়ে আছে। সেই সাথে নারী বাছাই করতে সিলেক্টিভ হওয়ারও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে এতে। আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের জন্য রাশিয়ার বিশ্বকাপ আনন্দময় করার জন্য এ ম্যানুয়াল প্রস্তুত করা হলেও এ নিয়ে সমালোনার ঝড় বইছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। ফলে নড়চড়ে বসেছে আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশনও।

এদিকে ড. পেনিসি দাবি করেছেন, তিনি এই কৌশলগুলো একটি ব্লগ থেকে কপি করেছেন এবং আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশনকে ম্যানুয়ালের বিষয়বস্তু নিয়ে সচেতন থাকতে বলেছেন। তবে তার ধারণা, তিনি খুব একটা খারাপ কাজ করেননি। উল্টো ম্যানুয়ালটি যারা অন লাইনে ছড়িয়েছে তাদের সমালোচনা করে বলেছেন, তারা বিশ্বাস ভঙ্গ করেছে।

তবে বিষয়টি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করে আর্জেন্টিনার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দাবি করেছে, তারা ম্যানুয়ালের বিষয়বস্তু আগে চেক করে দেখেনি।