নির্বাচনের নয়, এটা জনগণের বাজেটঃ কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সরকারের কাছে খালেদা জিয়াকে মুক্তির শর্ত দিয়ে লাভ নেই। সরকার তাকে জেলে নেয়নি, দণ্ড দেয়নি। সরকার তাকে মুক্তি দিতে পারে না।’
সোমবার রাজধানীর ইস্কাটনের লেডিস ক্লাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।
সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেতারা নির্বাচনের জন্য খালেদা জিয়ার মুক্তির শর্ত দিচ্ছেন। কার কাছে শর্ত দিচ্ছেন? কে তাকে মুক্তি দেবে? কে তাকে দণ্ড দিল? আদালতে যান। সরকারের কাছে তার মুক্তি দাবি করা মামাবাড়ির আবদার। আদালতের সিদ্ধান্তই হচ্ছে খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে শেষ কথা।
খালেদা জিয়াকে লন্ডনে নিয়ে চিকিৎসা করানো হোক-বিকল্প ধারার প্রেসিডেন্ট বদরুদ্দোজা চৌধুরীর এ বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, এই দাবিটা বিএনপি করুক। যদি জেল কোড অনুযায়ী তার চিকিৎসার জন্য বিদেশ পাঠানোর প্রয়োজন হয়, তাহলে পাঠাবে।
লন্ডনে তারেক রহমানের সঙ্গে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের সাক্ষাৎ সম্পর্কে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এটা খুব স্বাভাবিক ব্যাপার। এ নিয়ে মন্তব্য নেই। তবে মন্তব্য হচ্ছে, পলাতক দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীর সঙ্গে দেখা করা কি গণতন্ত্র? পলাতক আসামি কি কোনো দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হতে পারেন?
বিএনপি নেতা মওদুদের বক্তব্যের সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের জানান, মওদুদ সাহেব তার নির্বাচনী এলাকায় গিয়ে কিছু কথা বলেছেন। তার দল সেখানে দু’তিন ভাগে বিভক্ত। তিনি গেলেই সেখানে মারামারি অনিবার্য। পুলিশ দিয়ে তার নিরাপত্তা দিতে গেলে বলেন, পুলিশ নাকি তাকে ঘিরে রাখে। অথচ অনেকদিন পিছন পথে এলাকা ত্যাগ করেছেন তিনি।
আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এক-এগারোর সময় নেতারা যে সাহস দেখাতে পারেনি, তারচেয়ে বেশি সাহস দেখিয়েছেন শেখ হাসিনার মুক্তি আন্দোলনে। আওয়ামী লীগ এখনও কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি।
খুব শিগগিরই ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের থানা-ওয়ার্ড ও ইউনিয়নের পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেওয়া হবে জানিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগকে যে কোনো মূল্যে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। ঐক্যবদ্ধ থাকলে আগামী ডিসেম্বরে আওয়ামী লীগই বিজয়ী হবে। আর নেতাকর্মীদের এক সুরে কথা বলতে হবে। সব বিষয়ে সব নেতারা যেন কথা না বলেন। জোটের রাজনীতিতে নানা কৌশল আছে, সেগুলো না জেনে কথা বলা উচিৎ নয়।
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন প্রমুখ।