কলেজছাত্রীর সাত টুকরো লাশ: বিপ্লব রিমান্ডে

0
256
print
বরগুনার আমতলীতে কলেজছাত্রী মালা আক্তারকে (১৭) হত্যার পর লাশ সাত টুকরো করে ড্রামে লুকিয়ে রাখা মামলার আসামি অ্যাডভোকেট মাঈনুল আহসান বিপ্লব তালুকদারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিন রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. হুমায়ুন কবির শুনানি শেষে রিমান্ডের এ আদেশ দেন।

এ মামলায় অ্যাডভোকেট মাঈনুল আহসান বিপ্লব তালুকদারকে গ্রেফতার করে গত ২৫ অক্টোবর আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন জানায় পুলিশ। মঙ্গলবার শুনানির দিন ধার্য ছিল।

গত ২৪ অক্টোবর সকাল ৯টার দিকে আমতলী হাসপাতাল সড়কের অ্যাডভোকেট মাঈনুল আহসান বিপ্লবের বাসায় কলেজছাত্রী মালা আক্তারকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে হত্যার পর লাশ সাত টুকরো করে ড্রাম ভরে রাখা হয়। সেদিন বিকেলে বিপ্লবের বাসা থেকে দুটি ড্রাম ভর্তি সাত টুকরো লাশ উদ্ধার করে আমতলী থানার পুলিশ। ওই সময় ঘটনাস্থল থেকে প্রধান আসামি প্রভাষক আলমগীর হোসেন পলাশকে গ্রেফতার করা হয়। পরে পলাশের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ওই দিন রাত সাড়ে ১০টার দিকে আমতলী সদর রোড থেকে অপর আসামি মাঈনুল আহসান বিপ্লবকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় আমতলী থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) নুরুল ইসলাম বাদল বাদী হয়ে ২৪ অক্টোবর রাতে ঘাতক আসামি আলমগীর হোসেন পলাশ ও ভাগ্নি জামাই বাড়ির মালিক অ্যাডভোকেট মাঈনুল আহসান বিপ্লবের নাম উল্লেখসহ আরও কয়েক জনকে অজ্ঞাত আসামি করে আমতলী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। গত ২৫ অক্টোবর সকালে প্রধান আসামি আলমগীর হোসেন পলাশ আদালতের বিচারক মো. হুমায়ুন কবিরের কাছে ১৬৪ ধারায় খুনের কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সহিদ উল্যাহ জানান, আদালতে মাইনুল আহসান বিপ্লব তালুকদারকে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

বরগুনা সদর উপজেলার ঘুদিঘাটা গ্রামের আব্দুল মান্নান হাওলাদারের মেয়ে মালা। তিনি কলাপাড়া মোজাহার উদ্দিন বিশ্বাস কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন।

LEAVE A REPLY