এসিআইয়ের নতুন আগাছানাশক ব্যবহারে সুফল মিলছে

এসিআইয়ের নতুন আগাছানাশক ব্যবহারে সুফল মিলছে
প্রকাশ : ১৫ মার্চ ২০১৮

Twitter Google

অনলাইন ডেস্ক
পর পর দুটি বন্যায় দেশে ধানের আবাদ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর এবারের বোরো মৌসুমে কৃষক আটঘাট বেঁধে মাঠে নেমেছেন। চলতি বোরো মৌসুমে দেশের বিস্তৃত এলাকায় আবাদ শুরু হয়ে গেছে। তবে মানসম্মত বীজের অপ্রতুলতা, কীট ও রোগবালাইয়ের প্রকোপের পাশাপাশি মাঠের অবাঞ্চিত আগাছার মত সমস্যা গুলো যেন কৃষকের পিছু ছাড়ছেই না।
কৃষকদের দেয়া তথ্য মতে, প্রচলিত পদ্ধতিতে ৪০ শতাংশ জমির আগাছা দমনে ৩৫০০ টাকা কৃষি মজুরি ব্যয় হয় যেখানে সাধারণ কোন আগাছানাশক দিয়ে ১৫০ শতাংশ কমে ২২০ টাকায় করা যায়। তবে দেশের অন্যতম প্রধান শষ্য সুরক্ষা প্রতিষ্ঠান এসিআই ক্রপ কেয়ার কর্তৃক সদ্য বাজারজাতকৃত আগাছানাশক “জাম্প” ব্যবহার করলে এই ব্যয়কে প্রচলিত ব্যবস্থার তুলনায় ১৫০শতাংশ ও অন্যান্য আগাছানাশকের তুলনায় ৩৫শতাংশ কমিয়ে; মাত্র ৬২ টাকায় করা সম্ভব।
২০শতাংশ মেটসালফিউরন মিথাইল সম্পন্ন এই আলোচিত আগাছানাশক; রাজশাহী, সিরাজগঞ্জ, মাদারীপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় কৃষকদের মাঝে সাড়া ফেলতে সক্ষম হয়েছে। তবে মৌসুমের প্রথম দিকে সঠিক প্রয়োগমাত্রা ও সময় মেনে প্রয়োগ না করায় কিছু এলাকায় নেতিবাচক ফলাফল দেখা গেলেও কোম্পানিটি সরকারের কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করায়, কৃষক পর্যায়ে এ বিষয়ক বিভ্রান্তি দূর হয়।
তবে বর্তমানে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের বোরো চাষীরা “জাম্প” ব্যবহার করে আগাছা দমনে আশাতীত সুফল পাচ্ছেন বলে কৃষি বিভাগের এক সূত্র থেকে জানা যায়।
আর এভাবেই এসিআই এর মতো অন্যান্য কৃষি সহায়ক কোম্পাপানিগুলো আগাছা, কীট ও রোগবালাইয়ের মত সমস্যাগুলোর কার্যকরী সমাধান নিয়ে আনতে সফল হলে এবং বড় কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না ঘটলে এবারের বোরো মৌসুমে ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে বলে কৃষি বিষয়ে অভিজ্ঞ বক্তিগণ মতামত দেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি