এবার রাবির আরেক শিক্ষককে হুমকি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে কুপিয়ে হত্যার ১৬ দিনের মাথায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অপর এক শিক্ষককে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে।

রোববার দুপুর পৌন ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহবুব আলম প্রদীপকে তার ব্যক্তিগত মোবাইলে এ হুমকি দেয়া হয়।

এ ঘটনায় নগরীর মতিহার থানায় জিডি করেছেন ভুক্তভোগী শিক্ষক। নগরীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, রোববার সন্ধ্যায় ওই শিক্ষক থানায় এসে জিডি করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

হুমকিপ্রাপ্ত শিক্ষক মাহবুব আলম প্রদীপ বলেন, ‘অজ্ঞাতনামা +৮১৭৭৪৭৯ থেকে আমার মুঠোফোনে কল আসে। আমি ফোন রিসিভ করে হ্যালো বললে ফোনের ওপাশ থেকে বলা হয়, ‘তোর জীবন শেষ, অনেক বেড়ে গেছিস, ওয়েট কর। এরপর কে বলছেন জানতে চাইলে আবার একই কথা বলে ফোন কেটে দেয়।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মজিবুল হক আজাদ খান বলেন, ‘আমি ওই শিক্ষককে থানায় জিডি করতে বলেছি। পুলিশকেও আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলেছি।’

এর আগেও বিভিন্ন সময় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিসহ অর্ধশত শিক্ষক হুমকি পেয়েছেন। এদের মধ্যে অনেকে থানায় জিডিও করেছেন। কিন্তু পুলিশ হুমকিদাতাদের ধরতে সক্ষম হয়নি।

সর্বশেষ গত ২ মে রাবির উপাচার্য, সাংসদ, রাজনৈতিক নেতা, সাংবাদিকসহ ১০ বিশিষ্টজনকে হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছিল নাটোর প্রেসক্লাবে। ইসলামি লিবারেশন ফ্রন্ট (আইএলএফ) নামের একটি সংগঠনের প্যাডে চিঠিটি পাঠানো হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রমতে, গত এক বছরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ময়েজুল ইসলাম, একই বিভাগের অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক বিধান চন্দ্র দাস, ভেটেরিনারি সায়েন্সের অধ্যাপক কামরুজ্জামান, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আবুল কাশেম, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের প্রশাসক অধ্যাপক শফিকুন্নবী সামাদী, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক আকতার ফারুক ও অধ্যাপক আজাহার আলী, মনোবিজ্ঞানের অধ্যাপক এ কে এম গোলাম মালেক, অধ্যাপক শারমিন হামিদসহ প্রায় অর্ধ-শতাধিক শিক্ষককে হুমকি দেয়ার ঘটনা ঘটেছে।

কখনও আনসার আল ইসলামের নামে, কখনও সর্বহারা নামে, কখনও লালবাহিনীর নাম ব্যবহার করে চরোমপন্থিরা চিঠির মাধ্যমে হুমকি প্রদান; আবার কখনও মোবাইলে অজ্ঞাত নম্বর থেকে এসব হুমকি প্রদান করা হয়েছে।

সর্বশেষ গত ২৩ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সংস্কৃতিমনা অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে তার বাড়ির মাত্র ৫০ গজ দূরে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বত্তরা।

হত্যার পর জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস দায় স্বীকার করে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ, এদের মধ্যে তিনজনকে হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।