এগিয়ে আসছে ন্যাটোর যুদ্ধজাহাজ, শংকা বাড়ছে দিন দিন

যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন উত্তর আটলান্টিক চুক্তি সংস্থা বা ন্যাটো সামরিক জোট পূর্ব ভূমধ্যসাগরে তাদের নৌ যুদ্ধ যানের উপস্থিতি বাড়াচ্ছে। সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে রাসায়নিক সম্ভাব্য হামলার সাজানো নাটককে কেন্দ্র করে সিরিয়ার ওপর যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা হামলা চালাতে পারে বলে যখন দিন দিন শংকা বাড়ছে তখন ন্যাটো বাহিনীর উপস্থিতি জোরদারের এই খবর বের হলো।

ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে ন্যাটো জোটের নৌবাহিনীর তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী কয়েকটি ওয়েবসাইটের বরাত দিয়ে রাশিয়ার স্পুৎনিক বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, ন্যাটো মেরিটাইম গ্রুপ-২ এর কয়েকটি যুদ্ধজাহাজ সিরিয়ার উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, ন্যাটোর বহরে রয়েছে হল্যান্ড, কানাডা ও গ্রিসের কয়েকটি ফ্রিগেট।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানিয়েছে, ভূমধ্যসাগরে তৎপর মার্কিন নৌবহরের সঙ্গে যুক্ত হতে লস অ্যাঞ্জেলেস-ক্লাস সাবমেরিন রওয়ানা দিয়েছে। এ সাবমেরিনে দীর্ঘপাল্লার সাবসনিক টমাহক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে।

বেশ কিছুদিন থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও তার কয়েকটি মিত্র দেশ সিরিয়ার ইদলিবে সরকারি সেনাদের ওপর হামলার অজুহাত খুঁজছে। এর বিপরীতে সিরিয়া, রাশিয়া, ইরান এবং তার মিত্ররা বলছে, ইদলিবে রাসায়নিক হামলার নাটক সাজিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ার ওপর আগ্রাসন চালানোর ষড়যন্ত্র করছে। এর মাধ্যমে তারা উগ্র সন্ত্রাসীদের শেষ ঘাঁটি রক্ষা করতে চায়।

পরিস্থিতি যেদিকে যাচ্ছে – তাতে অনেকেই প্রশ্ন করছেন, এবার কি পরাশক্তিগুলোর নিজেদের মধ্যেই যুদ্ধ বেধে যাবে?