পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আগামী ১৪ জুনের মধ্যে পোশাক শ্রমিকসহ সব শ্রমিকদের মে মাসের বেতন ও উৎসব ভাতা (বোনাস) দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু। মঙ্গলবার (২৯ মে) সচিবালয়ে গার্মেন্টস ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট কোর কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঈদের আগে পর্যায়ক্রমে পোশাক শ্রমিকদের ছুটি দেওয়া হবে। ১০ জুনের মধ্যে মে মাসের বেতন পরিশোধ করতে হবে। আর ছুটির আগে বা ১৪ জুনের মধ্যে অবশ্যই উৎসব ভাতা পরিশোধ করতে হবে।

মুজিবুল হক বলেন, ঈদ মুসলমানদের সবচেয়ে বড় উৎসব। সেই উৎসব যাতে আমাদের শ্রমিক ভাইয়েরা পরিবারের সঙ্গে ভালভাবে কাটাতে পারেন, সেই লক্ষ্যে সরকার, মালিক এবং শ্রমিক মিলে ত্রিপক্ষীয় মিটিং করেছি। আমরা তাদেরকে (মালিক পক্ষ) অনুরোধ করেছি যে, মে মাসের বেতন শ্রম আইন অনুযায়ী পরবর্তী মাসের ৭ কর্ম দিবসের মধ্যে দিয়ে দিতে হয়। এটা যাতে তারা দিয়ে দেয়। যদিও এটা তারা দিয়ে দেয়। তারপরেও আমরা বলেছি। এর সাথে উৎসব ভাতা যাতে দিয়ে দেন।

তিনি জানান, সভায় আরও একটি বিষয় উঠে আসে। সেটা হল, ঈদ হচ্ছে মাসের মাঝামাঝি। তাই ঈদের আগে যে কয়দিন শ্রমিকরা কাজ করবেন সে কয়েকদিনের বেতনের বিষয়ে। তবে মাস শেষ হওয়া ছাড়াতো মালিক পক্ষের বেতন দেয়া সম্ভব নয়। তবে কোনো মালিকের যদি সম্ভব হয়, এ কয়েকদিনের বেতন দিয়ে দেবে, তাহলে সেটা তাদের বিষয়। কিন্তু এটা মালিক পক্ষের জন্য বাধ্যতামূলক নয়।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঈদে বাড়ি যাওয়ার আগে অনেক সময় দেখা যায়, শ্রমিকরা ছিনতাইয়ের শিকার হন। এ বিষয়ে পুলিশ-প্রশাসন যেন সতর্ক থাকে এবং শ্রমিকদের বিষয়ে যে মন্ত্রণালয়ের যে কাজ তা যেন ঠিকভাবে করা হয় সে বিষয়েও আলোচনা হয়েছে।

গত ২৭ মে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছিলেন, ১০ জুনের মধ্যে শ্রমিকদের মে মাসের বেতন ও উৎসব ভাতা (বোনাস) পরিশোধের জন্য মালিকদের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৬ বা ১৭ জুন দেশে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হবে।