সপ্তাহটা শেষ হলেই ঈদের সকাল দিয়ে শুরু হবে নতুন সপ্তাহ। আর ঈদের দিনে চুটিয়ে আনন্দ আর তাতে সাজ থেকে পোশাক কোনটাই বাদ পড়বে না। ফ্যাশন আদর্শ জায়গা হল মাথার চুল। কিন্তু মাথার চুল আর সাজের বাহার মানেই চুলের বারোটা বাজা। হেয়ার স্প্রে, ক্রিম, আয়রন, কার্ল, বিভিন্ন কেমিক্যালে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় চুল।
চুলের ক্ষতি রুখতে এই উৎসবের আগে থেকেই চুলে যথাযথ মশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। প্রত্যেকেরই প্রতিনিয়ত চুলে ময়েশ্চারাইজার প্যাক লাগানো উচিত। প্রতিদিন যদি সম্ভব না হয় তবে উৎসবের আগে অবশ্যই এটি করা উচিত। চুলে যথাযথ ময়েশ্চারাইজার থাকলে এটি চামড়ার বাইরে একটি স্তর তৈরি করে রাখে ফলে কেমিক্যাল বা কোনটাই চুলের গোড়ায় গিয়ে ক্ষতি করতে পারে না।

চুলে প্রতিদিন তেল মাখা একটি ভালো অভ্যাস। এছাড়াও ঈদের সময় যদি চুলের ক্ষতি না চান তবে অন্তত একসপ্তাহ আগে থেকেই চুলে তেল মাখা শুরু করুন। এমন তেল বাছবেন যাতে অলিভ, জোজবা ও রোসমেরির নির্যাস রয়েছে। এগুলি মাথার ত্বকের মুখকে বন্ধ করে দেয়। ফলে সেভাবে চুলের ক্ষতি হয় না।

মেহেদি পাউডার নিয়ে তাতে লেবুর রস ও কফি মিশিয়ে পরিমাণ মতো টকদই দিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে মাথায় মেখে নিন। এবার ৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন, দেখবেন আপনার চুলের আর কোনো সমস্যাই থাকবে না। এছাড়াও প্রতিদিন রাতে আমন্ড ওয়েল ও অলিভ ওয়েল চুলে মাখা অভ্যাস করুন। এটি চুলের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।