‘ইসলামের পথে আসতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছি’

পাকিস্তানের বিখ্যাত অভিনেত্রী এবং টিভি হোস্ট নূর বুখারী শোবিজ অঙ্গন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এই সিদ্ধান্ত তার অনেক সমর্থককে বিস্মিত করেছে।

সম্প্রতি তিনি হিজাব পরিধান অবস্থায় কয়েকটি ছবি প্রকাশ করলে সংবাদের শিরোনাম হয়েছিলেন। ৩৫ বছর বয়সী জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী নিশ্চিত করেছেন যে, তিনি ভবিষ্যতে কোনো সিনেমা বা টিভি শো করার পরিকল্পনা করছেন না। মাত্রই কয়েক সপ্তাহে আগে নূরের চতুর্থ স্বামী গায়ক ওয়াহিদ হামিদ আলী খানের সঙ্গে ডিভোর্স হয়ে গেছে। স্বামীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের পর তিনি এই সিদ্ধান্তটি নিলেন।

জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী বলেন, আমি এমন একটি সময় অতিক্রম করছিলাম; যেটি মানসিক আঘাত এবং অন্যান্য কষ্টের সঙ্গে জড়িত। আমি এ সম্পর্কে আর ভাবতে চাই না। সাক্ষাৎকারে তিনি তার ভবিষ্যতের পরিকল্পনার কথাও তুলে ধরেন এবং তার এই আধ্যাত্মিক যাত্রায় তিনি নিজেকে কতটা ভাগ্যবান বলে মনে করেন সেসম্পর্কেও কথা বলেন।

নূর বলেন, ইসলামের পথে আসতে পেরে আমি নিজেকে ভাগ্যবান বলে মনে করছি। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে মহান আল্লাহর সঙ্গে ঘনিষ্ট হওয়ার বিষয়টি আপনি চাইলেই বাছাই করে নিতে পারেন না, বরং আল্লাহই আপনাকে পছন্দ করে নেন।

আমি আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞ যে তিনি আমাকে পছন্দ করেছেন।

তিনি জানান, তিনি এখন নিয়মিত হিজাব পরছেন এবং হিজাব ছাড়া কখনো ঘর থেকে বাইরে বের হবেন না। নূর ২০০০ সালে শান শহিদের বিপরীতে মুজে চান চাহিয়া ছবিতে অভিনয় করে পাকিস্তানের শীর্ষ অভিনেত্রী হিসেবে আবির্ভূত হন। এর পর টানা কয়েক বছর তার অভিনয় করা একাধিক সিনেমা ব্যবসা সফল হয়। এছাড়াও নূর নাট্য শিল্পের সঙ্গে জড়িত উফ ইয়াহ লারিকিয়ান এবং মেরে আগনে মেইন এর মতো প্রকল্পগুলোতে কাজ করেছেন। তিনি টিভি অনুষ্ঠান মনিং শো উপস্থাপনা করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।

তিনি বলেন, আমি একজন পরিবর্তিত নারী। আমার দর্শনসমূহও পরিবর্তিত হয়েছে। আমার পরিশ্রম আমাকে আল্লাহর কাছাকাছি নিয়ে এসেছে এবং আমি আমার এই রূপান্তর সবার সঙ্গে ভাগ করে নেয়া্র পাশাপাশি এই পথ সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করতে চাই। তিনি আরো বলেন, আমি ধর্মীয় অনুষ্ঠান করবো। বিশেষত ইসলামিক প্রক্রিয়ার মধ্যে ইসলাম গ্রহণ সম্পর্কে শিখব।
সূত্র: দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।