ইরানে ‘কট্টর শাসনব্যবস্থা’ চলছে: ট্রাম্প

ইরানে ‘কট্টর শাসনব্যবস্থা’ চলছে বলে অভিযোগ তুলে এর নিন্দা জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। একই সঙ্গে তৃতীয় মেয়াদে আলোচিত ‘ইরান পারমাণবিক চুক্তি’ স্বাক্ষরে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার হোয়াইট হাউজে ট্রাম্পের বক্তব্যে এসব বিষয় উঠে আসে বলে বিবিবি ও সিএনএন এর খবরে জানানো হয়।

ইরান সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষকতা করে বলে অভিযোগ করে দেশটির উপর নতুন নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রস্তাব করেছেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, ইরান ইতোমধ্যে ২০১৫ চুক্তি লঙ্ঘন করেছে, ফলে দেশটির পারমাণবিক সক্ষমতার উপর আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের পথ সহজ হয়েছে।

ইরানের চুক্তি লঙ্ঘনের বিষয়ে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকরা অভিযোগ তুলেছেন বলেও জানান ট্রাম্প। মার্কিন এ প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি অনেকবার বলেছি- ইরান চুক্তি ছিল সবচেয়ে খারাপ চুক্তি। যেটি অনেক বেশি এক পাক্ষিক, যা যুক্তরাষ্ট্র কখনই এর ভেতরে তুলিয়ে দেখেনি।

তিনি জানান, যাদের ভবিষ্যৎ পরিস্থিতি আরো বেশি সহিংসতা, সন্ত্রাসে সংশ্লিষ্ট, আমরা সেই পথে নেই। এর মধ্যদিয়ে ইরানের পারমাণবিক চুক্তি বাতিলের স্পষ্টতই হুমকিও দিয়েছেন তিনি।

চুক্তির বিষয়ে প্রতি ৯০ দিনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের অনুমোদন প্রয়োজন হয় কংগ্রেসের। চুক্তির বিষয়ে সম্মতির পথ খোলা রেখেছে ইরান। ট্রাম্প ইতোমধ্যে দুইবার চুক্তি অনুমোদন করেছেন। তৃতীয় মেয়াদে এসে ইরান চুক্তি স্বাক্ষরে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন তিনি। যেই চুক্তির সময়সীমা (ডেটলাইন) রোববার পর্যন্ত।

ট্রাম্প কংগ্রেসে ইরানের পারমাণবিক চুক্তি মেনে চলার স্বীকৃতি না দিলে ফের দেশটির নিষেধাজ্ঞা অরোপের সিদ্ধান্ত নেবে যুক্তরাষ্ট্র।এক্ষেত্রে পুনঃ নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে কংগ্রেস ৬০ দিন সময় নেবে।