আশ্রমে শিষ্য ধর্ষণ, ‘ফলাহারী বাবা’র আমৃত্যু কারাদণ্ড ভারতে

ভারতের ‘ফলাহারী বাবা’ নামে পরিচিত এক হিন্দু সাধুকে আশ্রমের শিষ্য ধর্ষণের দায়ে আমৃত্যু কারাদণ্ড দিয়েছেন রাজস্থানের একটি আদালত। কারাদণ্ডের পাশপাশি ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন আদালত।

জানা গেছে, ওই সাধুর নাম কৌশলেন্দ্র প্রপান্নাচার্য। রাজস্থান, গুজরাট, মধ্যপ্রদেশে তার বিপুল শিষ্য-অনুরাগী রয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, রাজস্থানের আলওয়ারে নিজের আশ্রমে এক শিষ্যাকে ধর্ষণ করেন ৫৮ বছর বয়সী এই সাধুবাবা।

এর আগে আহমেদাবাদের কাছে আসারাম বাপু নামে আরেক প্রভাবশালী সাধুবাবাও নিজ আশ্রমের এক ষোড়শীকে ধর্ষণ করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ভোগ করছেন।

বৃহস্পতিবার রায় দিতে গিয়ে রাজস্থানের নিম্ন আদালতের বিচারপতি মন্তব্য করেন, যে পরিবার তাকে ঈশ্বরের মতো ভক্তি করত, সেই পরিবারের একটি মেয়ের সঙ্গে এই ধরনের অপরাধ ঘটানো মানে গোটা সমাজের সঙ্গেই বিশ্বাসঘাতকতা।

সরকারি আইনজীবী যোগেন্দ্র সিং খাটানা বলেন, ফলাহারী বাবার মতো এত ভক্ত-শিষ্য যার, সে রকম একজন সম্মানী লোক যদি এই ধরনের অপরাধের সঙ্গে যুক্ত থাকেন, তাহলে তো সাধু-সন্ন্যাসীর ওপর থেকেই মানুষের বিশ্বাস চলে যাবে।

২০১৭ সালের ১১ সেপ্টেম্বর নিজের আশ্রমে ২১ বছর বয়সী ওই শিষ্যকে ধর্ষণ করেন ফলাহারী বাবা। ধর্ষিতা একজন শিক্ষানবিশ আইনজীবী বলে জানা গেছে।

ফলাহারী বাবার সাহায্যেই আদালতে শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজ করার সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি। এ ব্যাপারে ধন্যবাদ জানাতে গেলে সেই সময় তার ওপর যৌন অত্যাচার চালান ফলাহারী বাবা।