আদালতে ছাত্রদল নেতার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

0
147
print
ফেনীতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গাড়িবহরের পাশে দুটি বাসে পেট্রোল বোমা মেরে আগুন দেওয়ার ঘটনায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন ছাত্রদল নেতা নূরে সালাম মিলন। তিনি ফেনী সদরের ফাজিলপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি। গত বুধবার রাতে ফেনীর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেনের আদালতে তিনি ১৬৪ ধারায় স্বীকৃরোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে ফেনীর পুলিশ সুপার এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তবে জেলা বিএনপি সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু তাহের বলেন, পুলিশ মিলনকে থানায় নির্যাতন করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে বাধ্য করেছে। প্রকৃত ঘটনা আড়াল করে মিথ্যা

মামলা দিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের নির্যাতন করছে।

এদিকে এ ঘটনায় বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের ১৯ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে ফেনী পুলিশ জেলাব্যাপী যৌথ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে। এর আগে একই ঘটনায় পুলিশ আরও ছয়জনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায়। পুলিশ বলছে, নাশকতার প্রকৃত আসামিদের চিহ্নিত করা গেছে।

খালেদা জিয়ার কক্সবাজার সফরে যাওয়ার সময় ফেনীর মোহাম্মদ আলী বাজারের কাছে ফতেহপুর নামক স্থানে বহরের ওপর হামলা ও ফিরতি পথে মঙ্গলবার বিকেলে ফেনীর মহীপালে পেট্রোল বোমার বিস্টেম্ফারণে দুটি বাস আগুনে পুড়ে যায়। এ দুই ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ফেনী থানায় দুটি পৃথক মামলা রুজু করেছে। পেট্রোল বোমার বিস্টেম্ফারণের ঘটনায় পুলিশ ২৯ জন বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদল নেতাকর্মীকে আসামি করে বুধবার রাতে মামলা রুজু করে।

ফেনী থানার ওসি রাশেদ খান চৌধুরী জানান, পুলিশ বেশ কয়েকটি দলে বিভক্ত হয়ে বুধবার রাতে জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় সোনাগাজী থেকে পৌর বিএনপির সভাপতি আবুল মোবারক ভিপি দুলাকে পুলিশ আটক করে। ফুলগাজী থেকে গ্রেফতার করা হয় উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি কামাল উদ্দিনকে।

পুলিশ জানায়, বিকেলে গ্রেফতার আসামিদের আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত তাদের জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

LEAVE A REPLY